1. kumarshuvoroy.bd@gmail.com : Shuvo Roy : Shuvo Roy
  2. eshuvo1@gmail.com : newsdesk :
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪৮ অপরাহ্ন

জাতির পিতা ও প্রধাণমন্ত্রীর ছবি না থাকায় এমপির উপর ক্ষুদ্ধ সাবেক ছাত্রলীগ নেতা

  • প্রকাশের সময়ঃ শনিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২৩
  • ১৮৫০ জন দেখেছেন
পিরোজপুর বার্তা ডেষ্ক : ব্যানারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধাণমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি না থাকায় পিরোজপুর ৩ আসনের (মঠবাড়িয়া) এমপি ডাঃ মোঃ রুস্তুম আলী ফরাজীর উপর ক্ষুদ্ধ হয়ে ঢাকা দক্ষিন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বায়জিদ আহমেদ খান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোষ্ট দেন । তার সেই পোষ্ট এমন ছিলো –
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী উন্নয়নমাতা শেখ হাসিনার ছবি বাদ দিয়ে নিজে কৃতিত্ব নেয়ার অপচেষ্টায় বারবার সফল হয়েছে এই বিশ্বাসঘাতক / বেইমান সংসদ সদস্য। তিনি স্বতন্ত্র / ধানের শীষ/ নৌকা প্রত্যাশা করে ১৮ সালে লাঙ্গল এখন আবার নৌকা চান না পেলেও নিশ্চিতভাবেই বিদ্রোহী ভূমিকায় থাকবেন মৃত্যু পর্যন্ত ।
আমার সাথে দ্বিমত করার অধিকার যেকারোই থাকতে পারে কিন্তু আমার আপত্তির যায়গা হচ্ছে সংসদে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে খুবই সমীহ করে কথা বলে , সততার বাণী শুনিয়ে তার দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেন , তার দয়ায় চলছেন (ভবিষ্যতেও ভালো কিছু চান) আর এলাকায় এসে আওয়ামী লীগ কর্মীদের ধংস করেন প্রতিনিয়ত। সংসদে চামচামির সীমান্তে পৌছলেও এলাকার বক্তব্যে কখনোই আওয়ামী লীগ সরকারের অবদান তুলে ধরেন না এই ভণ্ডামি আর কতোকাল চালাতে চান।
আপনার অসহায়ত্ব ২০১৮ সালের নির্বাচনে দেখেছি , সেদিন নিজেকে অনেক জনপ্রিয় দাবি করতে দেখিনি , ( যেটা নির্বাচনের পরে দেখেছি / শুনেছি ) মাঠের বাস্তবতাও ছিলো ভিন্ন পরবর্তীতে সকলের প্রচেষ্টায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছিলো ,মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে পাশেও ছিলাম ,জানিনা ভবিষ্যতে কোন ভূমিকায় থাকতে হবে। তবে আপনাকে অনুরোধ জীবনসায়াহ্নে আর নৈতিকতা বিসর্জন না দিয়ে আর দল পরিবর্তন না করে আবার স্বতন্ত্র নির্বাচনে এসে প্রমাণ করুন জনগণ আপনার সাথে আছেন।
মঠবাড়িয়ায় আপনিই একমাত্র সৌভাগ্যবান যিনি সবসময়ই আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণেই জিতেছেন , আবার জিতেই অস্বীকার করে নিজেকে জনপ্রিয় হিসেবে দাবি করেছেন , বেইমানি আপনার রক্তের সাথে মিশে গেছে।
আপনার মতো নীতি আদর্শহীন ব্যক্তি এমন গুরুত্বপূর্ণ জনপদের জনপ্রতিনিধি এটা মঠবাড়িয়ার সকল রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের জন্য লজ্জাজনক। কেননা একজন মানুষ নিজে এমপি হওয়ার জন্য জীবনে কতোবার দল পরিবর্তন করতে পারে।দূর থেকে অনেকেই আপনাকে জনপ্রিয় মনে করে তারা হয়তো আপনার ভণ্ডামি দেখেনি , তারা হয়তো জানেনা আপনার আপন ভাই চেয়ারম্যান থাকাকালীন ভাই সহ ১১ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আপনার বিরুদ্ধে জুতো /ঝাড়ু মিছিল করেছিলেন, কারণ ভণ্ডামি করতে করতে নিজের ভাইয়ের সাথেও করেছিলেন সেদিনই আপনার রাজনীতি থেকে বিদায় নেয়া উচিৎ ছিলো।
২০১৫ সালে আমাকেই বলেছিলেন ২০১৮ এর নির্বাচন আপনার জীবনের শেষ নির্বাচন কিন্তু মধুর লোভ হয়তো মৃত্যু পর্যন্ত থাকবে কারণ এই মধু খেতে আপনার পয়সা লাগেনি কখনো আওয়ামী লীগের কোন্দলের কারণে আবারও মধু আপনার কপালে থাকবে না সেটার নিশ্চয়তা দিচ্ছিনা।
আপনার সততা নিয়ে আজ লিখলামনা তবে আপনার স্ত্রী আপনার জন্য সত্যিই আশীর্বাদ।
অনেকেরই প্রশ্ন এতদিন পরে কেন?
কারো বিরুদ্ধে লেখালেখি করা পছন্দ নয় কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা নিয়ে সামনাসামনি তাকে সমীহ করে পিছনে তার কর্মীদের ধংস করাসহ সকল ষড়যন্ত্রে লিপ্ত এই চিটার / দলছুট এবার তার ছবি দিতেও নারাজ তাই লিখলাম।
আমাদের মধ্যে কেউ দুএক টন টিয়ার পেয়ে থাকলেও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সাথে বিশ্বাসঘাতককে প্রত্যাখ্যান করুন কারণ মূল যায়গায় আঘাত লাগলে চুপ থাকাটা অন্যায়ের সামিল।
বিঃদ্রঃ আমি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মঠবাড়িয়ার——————————————মনোনয়ন প্রত্যাশি নই।

শেয়ার করুন

একই ধরনের আরও খবর
© পিরোজপুর বার্তা সকল অধিকার সংরক্ষিত ২০২৩
Developed By Pirojpur Barta